Aug 10, 2023 192 views

প্রায়শই জিনিষ কিনে ঠকছেন? আসল-নকল পণ্য চিনবেন যেভাবে

Category: Blog

যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে মানুষ। বেঁচে থাকা বা জীবন যাপনের জন্য যে সমস্ত দ্রব্যাদি নিত্য প্রয়োজন, সেগুলির প্রায় সবই আমরা মূল্যের বিনিময়ে সংগ্রহ করি। আর অনেক ক্ষেত্রেই দেখা দেয় ভারী গোলযোগ। বিজ্ঞাপনের রঙিন দুনিয়ায়, চোখের সামনে হাজার হাজার অপশন দেখে বিভ্রান্ত হয়ে যাই আমরা। কোনটা যে আসল আর কোনটাই বা নকল বোঝা খুব মুশকিল হয়ে ওঠে। এখন তো আবার অন্যান্য জিনিসের পাশাপাশি চাল, ডাল, ডিমও নাকি নকল বিক্রি হয় অনেক জায়গায়। কিন্তু জীবন যাপনের জন্য কেনাকাটি থামিয়ে দিলে তো আর চলে না। অথচ প্রয়োজনীয় বস্তুটি আসল কি না সেও যাচাই করা একপ্রকার খড়ের গাদায় সূঁচ খোঁজার মতো। কী ভাবছেন? তাহলে উপায় কী?

এই সমস্যার সমাধান অনেকটাই সম্ভব যদি আপনি নিজে একটু চোখ, কান খোলা রাখেন এবং একটু সতর্কতা অবলম্বন করেন। একই জিনিসের হাজারখানেক বিজ্ঞাপনে বিভ্রান্ত হয়ে যাওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। সরকারের তরফে প্রচেষ্টা থাকলেও আপনার, আমারও দায় বর্তায় নিজেদের সুরক্ষিত রাখার। তাই কীভাবে চিনবেন কোনটা খাঁটি? কোনটাই বা কিনবেন? কেনার সময় কোন দ্রব্যে কী ধরণের চিহ্ন দেখে নেবেন? প্রয়োজনীয় আর কোন কোন বিষয় দেখে নেবেন আসুন জেনে নিই।

প্রতারণার হাত থেকে সকল ক্রেতাকে রক্ষার জন্য এবং সমস্ত নাগরিকের অর্থনৈতিক স্বার্থ রক্ষার জন্য ভারত সরকার প্রায় প্রত্যেকটি পণ্যের জন্য কিছু গুণমাণ তৈরি করেছে। যেমন BIS মার্ক, AG মার্ক, FPO চিহ্ন ইত্যাদি। বিস্তারিত নীচে দেওয়া হলো।

.BIS হলমার্ক: সোনার গয়না ও প্রত্নবস্তর ক্ষেত্রে এই  চিহ্নটি কিন্তু সরকারি তরফে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। চলতি বছরের পয়লা এপ্রিল থেকে সমস্ত সোনার গয়নায় HUID অর্থাৎ হলমার্ক ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন নম্বর থাকতে হবে। এই নম্বর গয়নার বিশুদ্ধতা সম্পর্কে নিশ্চয়তা প্রদান করে। এবং সোনার গয়না কেনার সময় অবশ্যই BIS অর্থাৎ ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস লোগো দেখে কিনবেন।

. AG মার্ক : এটির পূর্ণরূপ হলো এগ্রিকালচারাল মার্ক। এটি ভারতে কৃষি পণ্যের উপর নিযুক্ত একটি শংসাপত্র চিহ্ন। কৃষিজাত পণ্য যেমন চাল, ডাল, আটা, বিস্কুট, তেল, ঘি , মাখন, মধু, মশলা ইত্যাদি দ্রব্যাদি কেনার সময় অবশ্যই এই মার্ক দেখে নেবেন।

.ISI মার্ক: এটির পূর্ণরূপ হলো ভারতীয় স্ট্যান্ডার্ড ইনস্টিটিউট। বিভিন্ন বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি যেমন সুইচ, বৈদ্যুতিক মোট, তার, হিটার, রান্নাঘরের বিভিন্ন সরঞ্জাম ইত্যাদির মত সমস্ত বৈদ্যুতিক পণ্যগুলিতে এই চিহ্নটি দেখে তবেই নেবেন। এছাড়াও শিশু খাদ্য, পানীয় জল, এগুলোর গুণমান সম্পর্কেও নিশ্চয়তা দেয় এই মার্ক।

.FPO মার্ক: এটির পূর্ণরূপ হল ফ্রুট প্রোডাক্টস্ অর্ডার। বিভিন্ন প্যাকেটজাত ফল এবং ফলের জ্যাম, জেলি, স্কোয়াশ, আঁচার, কেচাপ, ফলের রস, ইত্যাদি ফলজাত পণ্যের জন্য এবং নরম পানীয়ের ক্ষেত্রে এই চিহ্ন দেখে তবেই কিনবেন। এছাড়াও বিভিন্ন প্যাকেটজাত মাছ, মাংস বা মাছ-মাংস জাত খাদ্য কেনার সময় এই চিহ্ন আছে কিনা যাচাই করে নেবেন।

.Non Polluting Vehicle মার্ক : আমাদের দেশে বিক্রীত সমস্ত নতুন মোটর গাড়ির জন্য প্রয়োজনীয় একটি বাধ্যতামূলক স্বীকৃতি প্রদানকারী চিহ্ন হলো এটি।

. Organic India মার্ক: বিভিন্ন জৈবপ্রযুক্ত খাদ্য পণ্যের ক্ষেত্রে জন্য এই চিহ্নটি দেখে কিনবেন। জৈবিকভাবে উৎপাদিত খাদ্যজাত পণ্যের জন্য ভারত জৈব সার্টিফিকেশন মার্ক এর প্রয়োজন হয়। এই চিহ্নের দ্বারা প্রমাণিত হয় যে ওই জৈব খাদ্যপূর্ণটি ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ডস ফর অর্গানিক প্রোডাক্টস (NSOP) এর কাঠামো দ্বারা অনুমোদিত।

.Eco মার্ক: বিভিন্ন পরিবেশ বান্ধব পণ্যের ক্ষেত্রে এই মার্ক দেখে তবেই কিনবেন। এটি চিহ্নিত করার দায়িত্বে রয়েছে বিআইএস (ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্টান্ডার্স)।

. সিল্ক মার্ক: সিল্কের বস্ত্র কেনার সময় ভারত সরকার অনুমোদিত সিল্ক মার্ক চিহ্ন দেখে তবেই কিনুন।

.উল মার্ক: উলের পোশাক বা উল কেনার সময় ভারত সরকার অনুমোদিত উল মার্ক চিহ্নদেখে তবেই কিনুন।

১০. হ্যান্ডলুম মার্ক: হ্যান্ডলুমের বস্ত্র কেনার সময় হ্যান্ডলুম মার্ক দেখে কিনুন।

এছাড়াও আপনি কি জানেন কোন মোড়কজাত দ্রব্যের মোড়কের গায়ে এই তথ্যগুলো থাকা অবশ্যই প্রয়োজন? জেনে নিন কোনও জিনিস কেনার সময় কোন কোন বিষয় আপনি দেখে নেবেন:

১) সামগ্রীর নাম

২) প্রকৃত ওজন, আয়তন অথবা সংখ্যা

৩) তৈরীর তারিখ।

৪) দ্রব্যের মেয়াদ শেষের তারিখ।

৫) আমদানিকারি বা প্রস্তুতকারীর পুরো নাম ও ঠিকানা

৬) সর্বাধিক খুচরো দাম সব রকমের কর সমেত।

৭) ক্রেতা অভিযোগ কেন্দ্রের নাম ঠিকানা ও বৈধ রেজিস্ট্রেশন নম্বর থাকতে হবে

সুস্থ থাকতে যেমন ভেজালমুক্ত দ্রব্যাদি প্রয়োজন। ঠিক তেমনই সেটি যাচাই করতে সতর্কতা অবলম্বন করাও জরুরী। তাই এবার বাজারে গেলে উপরোক্ত বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন। খড়ের গাদায় সূঁচ খুঁজতে যাওয়ার আগে যাতে সূঁচই না হারিয়ে যায় সেই দায়িত্ব কিন্তু আপনারই।

যদি আপনার প্রতারিত হওয়ার কোনও খারাপ অভিজ্ঞতা থেকে থাকে কমেন্টে জানান আমাদের। আপনার একটি কমেন্ট থেকে অনেকেই হয়তো ঠকে যাওয়ার থেকে বেঁচে যাবেন। প্রতিবাদ করুন অন্যায়ের। বলো গ্রাহক। কাস্টমার রাইটস ম্যাটার।

Your Comment

Related Post